Pages

Pages

বাংলা শব্দ দিয়ে সার্চ করুন

Tuesday, February 21, 2017

একটি শিক্ষামূলক শিশুতোষ গল্প

এক বনে বাস করত একটা হরিণ আর তার বাবু । বাবুটা ছিল অনেক ছোট্ট । সে ছিল খুব চঞ্চল । মাকে ছাড়া কিছু বুঝত না । আর মা সেতো সারাক্ষণ বাবুর চারপাশে থাকত । ধীরে ধীরে মায়ের আদরে বড় হতে লাগল ।

একদিন মায়ের শরীর খারাপ । বাবু মাকে রেখে একটু দূরে গেল বন্ধুদের সাথে । কিছুক্ষণ পর ফিরে এল । ফিরে এসে বলল ‘’ মা ! ওমা ‘’!

মা বলল ,'' কিরে আমার মানিক “’?

''মা আমি বনের রাজাকে দেখব ‘’!

এ কথা শুনতে লাফিয়ে উঠল মা ! ভুলে গেল তার শরীর খারাপের কথা । হরিণ কাঁপা কাঁপা গলায় বলল ,''এসব কি বলছিস আমার কলিজা ? আমার সোনা এসব বলে না ,একদম না ‘’!

দিন যায় ,মাস যায় ,বছরও । হরিণের বাচ্চা অনেক বড় আর লম্বা হয়ে ঊঠে । কিন্তু সেই কথা ভুলে না । মা এটা বুঝায় সেটা বুঝায় । উহু সে ভুলে না । একদিন বাচ্চা তার মাকে বলল ,’’ মা যদি তুমি বনের রাজাকে দেখতে না নিয়ে যাও । তবে আমি একা একা বনের রাজাকে দেখতে যাব ‘’ ।

মা অনেক বোঝাল ! কিছুতেই সে বুঝবে না । তারপর মা অনেক কাঁদল ! তারপর ঠিক করল নিয়ে যাবে ওকে । বের হল দুইজন । মা বার বার চেনা জায়গাটার দিকে ফিরে ফিরে দেখে আর কাঁদে ।

পথে শিয়ালের সাথে দেখা । শিয়াল ওদের দেখে খুব আনন্দিত গলায় বলল ‘’বাহ খুব ভাল লাগছে মা ছেলেকে দেখে ।তা কোথায় যাচ্ছ ’’? মা খুলে বলে সব । শিয়ালের মুখের হাসিটা পালিয়ে যায় যেন । শিয়াল গম্ভীর গলায় বলে ‘’ তুমি কি তোমার সন্তানকে বলনি যে, সব চাইতে নেই ‘’!

হরিণ বলল ,’’ আসলে ও তো ছোট ‘’!

শিয়াল আগের মত গম্ভীর গলায় বলে ‘’ বোকারা ঝড় দেখতে পথে নামে । আমি বলি শুন , ফিরে যাও ‘’ ।

শিয়াল হরিণ দুইজনে অনেক বুঝাল । কোন লাভ হলনা ! হরিণ শাবকের এক কথা তবে আমি একা চলে যাব ‘’ । শিয়াল নানান ভয় দেখাল । উহু ! লাভ হল না । শিয়াল বলল, হে হরিণ শাবক জেনে রেখ ,ফুলের বাগানে যদি কোন অন্ধ প্রবেশ করতে চায় একা একা । তবে সে ফুলের ঘ্রান পাবে , আনন্দ পাবে ঠিকই কিন্তু ফেরার পথ কোনদিন পাবে না ''।

পথে অনেকের সাথে দেখা হল । হাতি ,খরগোশ , মহিষ , গণ্ডার । সবাই তাদের মানা করল । এমনকি ইঁদুররা পর্যন্ত ! কিন্তু হরিণ শাবকের একই কথা ।

অবশেষে সেই জায়গায় এল সেখানে বাঘ থাকে । সেই এলাকায় এসে খুজতে থাকল । খুজতে খুজতে হয়রান , কোথাও বাঘ নেই । অন্য কোথাও যাবে কিনা ভাবছে । ঠিক তখন হরিণ দেখল বাঘটাকে ।! খুব বেশি দূরে না ওটা । পানির নালা থেকে পানি পান করছে । হরিণ বলল ,আমার দুই চোখের মনি ঐ দেখ আমাদের রাজা ! হরিণ শাবক মায়ের দৃষ্টি খেয়াল করে বাঘটাকে দেখে আনন্দে লাফিয়ে উঠল ! কি অদ্ভুত সুন্দর আমাদের রাজা !

দৌড়ে কিছুটা সামনে গেল । পিছনে থেকে মা বলল ‘’ বাবা আমার ! যাসনে ‘’ । ততোখনে বাঘ শব্দ পেয়ে ফিরে তাকিয়েছে । হরিণ শাবক থামল । একে একে সবার মানা করাটা মনে পরে গেল হরিণ শাবকের । সে দেখল বাঘটা অদ্ভুত গলায় চিৎকার দিয়ে দৌড়ে দৌড়ে আসতে শুরু করল তারই দিকে । কি অদ্ভুত সুন্দর লাগছে দেখতে বনের রাজাকে !

আর হরিণের মনে পরল শিয়ালের কথা ‘’ ’ তুমি কি তোমার সন্তানকে বলনি যে, সব চাইতে নেই ‘’!

শিক্ষাঃ জীবনে সব কিছু চাইতে নেই। সব কিছুর উত্তর খুজতে নেই। সব কৌতুহলের উত্তর মিলবে না। এমনকি সব কেন'র উত্তর ও হয় না। জেদি ও একরোখা অনেক সময় সাফল্য এনে দেয় তবে অবিবেচকের মতো জেদ কাম্য নয়। শিশুদের সব আহ্লাদ- জেদ পুরন, অনেক সময় ক্ষতির কারনও হতে পারে।

No comments:

Post a Comment